বিনোদন ডেস্কঃ এটিএন বাংলার চেয়ারম্যান ড. মাহফুজুর রহমান। সংগীতের প্রতি রয়েছে তার দারুণ ভালোবাসা ও আকর্ষণ। আর তাইতো নিজেই যুক্ত হয়েছেন গানের ভুবনে। তার গাওয়া গান নিয়ে ২০১৬ সালের কোরবানীর ঈদে প্রচার হয় ‘হৃদয় ছুঁয়ে যায়’ শিরোনামের একটি অনুষ্ঠান।

১০টি গান নিয়ে তার একক সংগীতানুষ্ঠানটি সেই ঈদের জনপ্রিয় অনুষ্ঠানগুলোর মধ্যে নিজের জায়গা করে নেয়। সেই থেকেই শুরু, এখনো গান করছেন মাহফুজুর রহমান। তার বেসুরো গায়কী নিয়ে অনেক আলোচনা-সমালোচনা ও বিতর্ক চললেও দমে যাননি তিনি। গান করে চলেছেন নিয়মিতভাবেই।

গেল দুই বছরে গানের আঙিনায় সবচেয়ে আলোচিত নাম ড. মাহফুজুর রহমান। তার দাবি, কেউ কেউ সমালোচনা করলেও তার অনেক ভক্তও গড়ে উঠেছে। যারা অপেক্ষায় থাকেন মাহফুজুর রহমানের গানের অনুষ্ঠানের জন্য।

ফেসবুকসহ সামাজিক মাধ্যমগুলোতে সমালোচনার পাশাপাশি অনেকে মাহফুজুর রহমানের গান পছন্দও করছেন। সাধুবাদ জানাচ্ছেন। তাদের মতে, বর্তমানে অনেক শিল্পীই গানের কিছু্ না জেনে-বোঝেই তারকাখ্যাতি পেয়ে যায় করপোরেট সমর্থন পেয়ে। সেখানে একজন চ্যানেল মালিক ও সংগীতানুরাগী হিসেবে মাহফুজুর রহমানের গান করা অনেক বেশিই যৌক্তিক ও আনন্দের।

২০১৬ সালের কোরবানি ঈদের ‘হৃদয় ছুঁয়ে যায়’ শিরোনামের অনুষ্ঠানের পর পরবর্তী বছর রোজার ঈদে প্রচার হয়েছে ‘প্রিয়ারে’ এবং কোরবানি ঈদে প্রচার হয়েছে তার একক সংগীতানুষ্ঠান ‘স্মৃতির আল্পনা আঁকি’। গত বছর প্রচার হয়েছে ‘মনে পড়ে তোমায়’ এবং কোরবানি ঈদে ‘বলোনা তুমি কার’। সেই ধারাবাহিকতায় আজ ঈদের তৃতীয় দিন রাত ১০টা ৩০ মিনিটে প্রচার হবে মাহফুজুর রহমানের একক সংগীতানুষ্ঠান।

এবারে তিনি ১০টি গান গাইবেন ‘মন থেকে রইলো শুভ কামনা’ নামের সংগীতানুষ্ঠানে। গানগুলোতে সুরারোপ করেছেন মান্নান মোহাম্মদ ও রাজেশ ঘোষ। গানের কথা লিখেছেন প্রদীপ সাহা, শেখ রেজা শানু, মোহাম্ম ইকবাল হোসেন, নাজমা মোহাম্মদ এবং রাজেশ ঘোষ।

মাহফুজুর রহমানের গাওয়া গানগুলো হলো- ভুলে গেলে তুমি, মনের কারাগারে, শত চেষ্টাতেও, যে ক্ষতি, দেখছি যতই, আমার পৃথিবী, ফিরে এসো, চাঁদ মুখ, কোথায় হারালে এবং তুমি এক পা বাড়ালে।

Post a Comment

 
Top