নিউজ ডেস্কঃ  শ্রীমঙ্গলের কালাপুরে একটি সিএনজি পাম্পের নজেল ফেঁটে অগ্নীকান্ডের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় পাম্পে গ্যাসের জন্য আসা ৩টি সিএনজি অটো রিক্সা পুড়ে যায়। এ সময় প্রচন্ড শব্দে ও ঝাঁকুনীতে ফেঁটে গেছে আশে পাশের কয়েকটি বিল্ডিং এর দেয়াল।
বুধবার বিকেলে শ্রীমঙ্গল কালাপুর মেরী গোল্ড সিএনজি পাম্পে একটি সিএনজি অটো রিক্সাতে নজেল প্রবেশ করানোর সাথে সাথে বিকট শব্দ হয়। তারপর নজেলের পাইপটিও শব্দ করে ফেটে যায়। নজেল থেকে গ্যাস চারদিকে ছড়িয়ে পড়ে এবং আগুন ধরে যায়। গাড়িতে থাকা যাত্রীসহ অনান্যরা দ্রুত নিরাপদ দূরত্বে সরে প্রাণে বাঁচেন। খবর পেয়ে শ্রীমঙ্গল ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা এসে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনেন।

এদিকে আগুন লাগার পর পাম্পের বেশ কয়েকটি ফায়ার এক্সস্টিংগুইসার কাজ না করায় এলাকাবাসী গ্যাস পাম্পের কর্মীদের উপর চড়াও হয়। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন করে।
মেরী গোল্ড সিএনজি ফিলিং স্টেশনের ইঞ্জিনিয়ার সাইফুল ইসলাম বলেন, আগুন লেগে ফিলিং স্টেশনের বড় রকমের ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। তিনি জানান, আগুন লাগার খবর শুনে দ্রুত ঘটনাস্থলে এসে এক্সস্টিংগুইসার নিয়ে আগান নেভানোর কাজে লেগে পড়েন। আগুন লাগার ফলে গ্যাস পাম্পের ডিসপেন্সার মেশিন, নজেল, ওয়ারিংসহ অনেক কিছু পুড়ে গেছে। আগুন লেড়ে ফিলিং স্টেশনের প্রায়৩০/৪০ লক্ষ টাকা ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।
পুড়ে যাওয়া তিনটি সিএনজি চালিত অটো রিকশার মালিক নুর মিয়া, জামাল মিয়া ও অনিক দেব জানান, এর উপরেই তাদের সংসার চলে। সিএনজি ক্রয়ের কিস্তিও দিতে হয়, এখন তারা নিঃস্ব।
এ ব্যাপারে শ্রীমঙ্গল ফায়ার স্টেশন এর কর্মকর্তা আব্দুল আহাদ জানান, খবর পেয়ে তারা দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনেন। তিনি জানান, ৩টি সিএনজি অটো এবং ফিলিং স্টেশন ডিসপেন্সার মেশিন পুঁড়েছে। তবে মেশিনের ভিতর ও গাড়ির ইঞ্জিন এর কি পরিমান ক্ষতি হয়েছে তা সংশ্লিষ্ট ইঞ্জিনিয়ার ছাড়া বলা যাবেনা।
এদিকে পাইপ ফেঁটে আগুন লাগার সময় বিকট শব্দে পাম্পের পাশে বাসা ও মার্কেটের বিল্ডিংএ ফাঁটল দেখা দেয় বলে অভিযোগ করেন ওই সকল ঘরের বাসিন্দা জসিম মিয়া, ও সাইফুল ইসলাম। গৃহস্থলির অপর বাসিন্দা চম্পা বেগম জানান, শব্দের সাথে সাথে তাদের ঘর নড়তে থাকে। ভয়ে তারা ঘর থেকে বের হয়ে বাহিরে চলে যান।

Post a Comment

 
Top