স্টাফ রিপোর্টারঃ মৌলভীবাজারের কুলাউড়ায় একই দিনে অপরিপূর্ণ নবজাতকের মৃতদেহ এবং রুহুল ইসলাম কাশেম (২৭) নামে এক যুবকের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। 

মঙ্গলবার ৮ অক্টোবর সকাল ১০টার দিকে পৌরশহররে উছলাপাড়া এলাকা থেকে পলিথিনে মোড়ানো অপরিপূর্ণ নবজাতকের মৃতদেহটি উদ্ধার করা হয়। একই দিন বিকেল ৩টার দিকে উপজেলার ব্রাহ্মণবাজার ইউনিয়নের দক্ষিণ হিঙ্গাজিয়ার ঘর থেকে ইরফান আলীর পুত্র রুহুল ইসলামের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয়।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার সকাল ৭টায় পৌর শহরের নবীনচন্দ্র মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ে পূর্ব দিকে সড়কের পাশে পলিথিনে মোড়ানো একটি নবজাতকের লাশ দেখতে পান স্থানীয়রা এবং বিষয়টি থানা পুলিশকে জানান। খবর পেয়ে থানার এস আই হারুন আল রশীদসহ পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ওই নবজাতকটির মৃতদেহ উদ্ধার করে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেন। স্থানীয়দের দাবি অবৈধ গর্ভপাতের পর রাতের আধারে কেউ পলিথিনে ভরে নবজাতকটির লাশ ফেলে যায়।

এদিকে উপজেলার দক্ষিণ হিঙ্গাজিয়ার সোমবার রাতে রুহুল ইসলাম কাশেম খাওয়া দাওয়া শেষে নিজ ঘরে ঘুমাতে যান। মঙ্গলবার সকালে রুহুলের ছোট ভাই দরজায় গিয়ে ডাকাডাকি করে তাঁর কোন সাড়াশব্দ না পেয়ে ঘরের ভেন্টিলেটর দিয়ে দেখতে পান রুহুল গলায় ফাঁস দেওয়াবস্থয় ঝুলে আছে। পরে কুলাউড়া থানা পুলিশকে খবর দিলে এস আই হারুন আল রশীদ ঘটনাস্থলে গিয়ে রুহুলের মৃতদেহ সুরতাহাল শেষে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেন। রুহুল ৬ মাস আগে বিয়ে করেন। বিবাহিত হলেও তাঁর স্ত্রী শশুড় বাড়িতে থাকেন। এজন্য পারিবারিক কলহের জেরে হয়ত রুহুল গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছের এমন ধারণা স্থানীয়দের।

এস আই হারুন আল রশীদ বলেন, নবজাতক এবং রুহুলের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মৌলভীবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে ও থানায় অপমৃত্যু মামলা দায়ের করা হয়েছে।

Post a Comment

 
Top