স্পোর্টস ডেস্কঃ বাংলাদেশের ক্রিকেট ভক্তদের জন্য সুখবর- এক বছরেই দুইবার বিপিএল উপভোগ করতে যাচ্ছেন তারা। শনিবার বিসিবির কার্যনির্বাহী সভা শেষে বোর্ড সভাপতি নিশ্চিত করেছেন, ৬ ডিসেম্বর শুরু হবে বিপিএলের সপ্তম আসর।

এই বছরের ৫ জানুয়ারি হয়েছিল বিপিএলের সবশেষ আসর, শেষ হয় ৮ ফেব্রুয়ারি। প্রায় ১০ মাস পরই শুরু হচ্ছে দেশের ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেটের আরেকটি আসর। এবারের আয়োজনটি হবে জমকালো উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের মাধ্যমে।

৩ ডিসেম্বর হবে উদ্বোধনী অনুষ্ঠান। তিন দিন পর শুরু হবে মাঠের লড়াই। নভেম্বরের শুরুতে ভারতে দুই টেস্ট ও তিন টি-টোয়েন্টি খেলার পরপরই বিপিএল উপভোগ করবেন ক্রিকেটপ্রেমীরা।

শনিবার মিরপুরে সভা শেষে বোর্ড সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন বলেছেন, ‘আমরা এবার জমকালো আয়োজনে বিপিএল শুরু করবো। ৩ ডিসেম্বর উদ্বোধনী অনুষ্ঠান হবে, বিপিএল শুরু করবো ৬ ডিসেম্বর। এটা নিয়ে আমাদের প্রস্তুতি শুরু হয়ে যাবে।’

এবারের টুর্নামেন্টে আরও একটি ভেন্যু যোগ হতে পারে। ঢাকা, চট্টগ্রাম ও সিলেটের সঙ্গে খুলনাকেও ভাবা হচ্ছে আয়োজক শহর হিসেবে।

এরই মধ্যে দল গুছিয়ে নিতে শুরু করেছে ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলো। আইকন খেলোয়াড়দের দলবদল প্রায় নিশ্চিত। সরাসরি বিদেশি খেলোয়াড়দের সঙ্গে চুক্তি করেছে একাধিক দল।

শনিবার বোর্ড সভায় আরও কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। নির্বাচক কমিটিতে বদল আসতে পারে এমন গুঞ্জন শেষ পর্যন্ত টেকেনি। প্রধান নির্বাচক হিসেবে মিনহাজুল আবেদীন নান্নু ও নির্বাচক হাবিল বাশার সুমনের প্যানেলের মেয়াদ বাড়ানো হয়েছে। গত জুনে বিশ্বকাপের দল ঘোষণাই ছিল এই পুরোনো কমিটির শেষ দায়িত্ব। এবার তাদের মেয়াদ বাড়ানো হলো ২০২০ সালের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ পর্যন্ত।

এছাড়া মেয়েদের অনূর্ধ্ব-১৯ দলের প্রথম বিশ্বকাপ মাথায় রেখে দল গঠনের পরিকল্পনা করছে বিসিবি। সময়ের মধ্যে যদি সেটা সম্ভব নাও হয়, তবুও পরের আসরের জন্য প্রস্তুত থাকতে এই বয়সভিত্তিক দল গঠন করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বোর্ড সভায়।

বোর্ড প্রধান আরও জানান, বঙ্গবন্ধু জন্ম শতবার্ষিকী উদযাপনে ক্রিকেট উৎসবে মাতবে বাংলাদেশ। বিশ্ব একাদশ ও এশিয়া একাদশের দুটি টি-টোয়েন্টি আয়োজন করা হবে। এছাড়া অনূর্ধ্ব-১২ বয়সী ছেলে-মেয়েদের নিয়ে বছর ব্যাপী একটা ক্রিকেট কার্নিভাল হবে, যা পুরো দেশে চলবে। এছাড়া যুব সমাজের অংশগ্রহণে সারা দেশে বিভাগীয় পর্যায়ে একটি টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট আয়োজন করা হবে।   

বার্ষিক বাজেট নিয়ে নাজমুল হাসান বলেন, ‘আগামী অর্থ বছরে বিসিবির রাজস্ব বাজেট ২৪৩ কোটি টাকা। খরচ হিসেবে ধরা হয়েছে ১৮৮ কোটি টাকা। যদিও গত অর্থ বছরে রাজস্ব বাজেটের চেয়ে বেশি হওয়ার পাশাপাশি খরচ কম হয়েছে, যার পরিমাণ ৫৫ কোটি টাকা।’

বিভিন্ন ব্যক্তি ও সংস্থাকে আর্থিক সহায়তা দেওয়ার সিদ্ধান্তও গৃহীত হয়েছে এই বোর্ড সভায়। সাবেক স্পিনার রাম চাঁদ গোয়ালা ও অভিজ্ঞ ক্রিকেটার মোশাররফ হোসেন রুবেলকে ১০ লাখ করে টাকা দেওয়া হচ্ছে। সাংবাদিক মাহবুব আলম বাবুকে ২ লাখ টাকা আর্থিক অনুদানও দেবে বোর্ড। এছাড়া কাবাডি ফেডারেশনকে তিন বছরে ৩০ লাখ টাকা দেওয়া হবে। বাংলাদেশের প্রথম অধিনায়ক শামীম কবির অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি আছেন, তার হাসপাতালের চিকিৎসার ব্যয়ভার বিসিবি প্রদান করবে বলে সিদ্ধান্ত হয়েছে।

শেখ হাসিনা আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়াম তৈরির জন্য আন্তর্জাতিক দরপত্র আহ্বানের সিদ্ধান্ত নিয়েছে বোর্ড। এনিয়ে নাজমুল হাসান বলেন, ‘শেখ কামাল স্টেডিয়ামকে আন্তর্জাতিক মর্যাদা দেওয়ার জন্য আবেদন করবো। যা যা করা দরকার, শুরু করেছি। অত্যন্ত আধুনিক ও আন্তর্জাতিক মানের একটা একাডেমি সেখানে স্থাপন করতে যাচ্ছি। সেখানে ডরমেটরির সুবিধাও থাকবে, যেন সেখানে থেকে সবাই অনুশীলন করতে পারে এবং নতুন নতুন খেলোয়াড় যেন বের হয়।’

Post a Comment

 
Top