অনলাইন ডেস্কঃ ইথিওপিয়ায় বোয়িং ৭৩৭ ম্যাক্স বিমানটি বিধ্বস্তের আগে উড্ডয়নের পরই ফেরত আসতে চেয়েছিল। এ জন্য অনুমোতিও চেয়েছিল। খরব বিবিসির।

ইথিওপিয়ান এয়ারলাইন্সের সেই পাইলটকে ফেরত আসার অনুমতি দেওয়া হয়েছিলো বলে সংবাদ সম্মেলনে জানিয়েছেন এয়ারলাইন্সের সিইও। তবে ঠিক কি কারণে প্লেনটি উড্ডয়নের কয়েক মিনিট ব্যবধানেই বিধ্বস্ত হলো সে ধোঁয়াশা এখনও কাটেনি।

রোববার দুপুরে দেশটির রাজধানী আদ্দিস আবাবা থেকে কেনিয়া যাওয়ার পথে ইথিওপিয়া এয়ারলাইনসের বোয়িং ৭৩৭ বিমানটি বিধ্বস্ত হয়।

দুর্ঘটনার পর এ বিষয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে কথা বলেন ইথিওপিয়ান এয়ারলাইন্সের সিইও তৌলদে গ্যাব্রিমারিয়াম। তিনি জানান, প্লেনটিতে ৩৩টি দেশের নাগরিক ছিলেন।

মাত্র চার মাস আগে গত বছরের নভেম্বরে ইথিওপিয়ান এয়ারলাইন্সের বহরে যুক্ত হয় বিধ্বস্ত হওয়া বোয়িং ৭৩৭ ম্যাক্স৮ প্লেনটি। এর পাইলটও ছিলেন ব্যাপক অভিজ্ঞ। কারণ ২০১০ সাল থেকে তিনি এয়ারলাইন্সটির সঙ্গে যুক্ত রয়েছেন।

সংবাদ সম্মেলনে পাইলটের কথোপকথনের বরাতে সিইও তৌলদে গ্যাব্রিমারিয়াম বলেন, ‘জটিলতা’ অনুভব করায় এর পাইলট ফেরত আসার কথা বলেন। তাকে ফেরত আসার অনুমতিও দেওয়া হয়।

প্রসঙ্গত, ‘বোয়িং ৭৩৭ বিমানটি ১৪৯ যাত্রী ও আট ক্রু নিয়ে আদ্দিস আবাবা থেকে কেনিয়ার রাজধানী নাইরোবিতে যাচ্ছিল। বিমানবন্দর থেকে ছাড়ার কিছু সময়ের মধ্যেই স্থানীয় সময় সকাল ৮টা ৪৪ মিনিটে এ দুর্ঘটনা ঘটে। এটি আদ্দিস আবাবা থেকে ৩৭ মাইল দূরে বিধ্বস্ত হয়।

এ ঘটনায় দেশটির প্রধানমন্ত্রী আবি আহমেদ গভীর দুঃখ প্রকাশ করেছেন। তাৎক্ষণিক এক টুইটে প্রধানমন্ত্রী বলেন, এ বিমান দুর্ঘটনায় যেসব পরিবার তাদের স্বজন ও আপনজন হারিয়েছে, তাদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানাচ্ছি।

Post a Comment

 
Top