অনলাইন ডেস্কঃ পবিত্র হজ পালন নিয়ে সৌদি আরব রাজনীতি করছে বলে অভিযোগ করেছে কাতার। দোহার দাবি, পবিত্র মক্কায় হজ পালনে ইচ্ছুক কাতারিদের বিরুদ্ধে প্রতিবন্ধকতা আরোপ করেছে সৌদি কর্তৃপক্ষ।

কাতারের জাতীয় মানবাধিকার কমিশন (এনএইচআরসি) শনিবার জানিয়েছে, কাতারি নাগরিকদের বলা হয়েছে তারা শুধু দুটি বিমানবন্দর দিয়ে সৌদি আরবে প্রবেশ করতে পারবে এবং দোহা হয়ে না এলে তাদের ঢুকতে দেওয়া হবে না।

রিয়াদের এই নির্দেশনাকে কাতারি নাগরিকদের জন্য প্রতিবন্ধকতা হিসেবে দেখছে দোহা। কাতারের যেসব নাগরিক বিদেশে থাকে, তাদের জন্য এ নির্দেশনা মানা খুবই কঠিন হয়ে দাঁড়াবে। কারণ বিদেশে থাকা কাতারিদের হজ পালনে মক্কায় যেতে তাদের আগে দোহায় আসতে হবে এবং তারপর সৌদি আরবে নির্দিষ্ট করে দেওয়া দুটি বিমানবন্দরে যেসব ফ্লাইট যাবে, সেগুলো ধরতে হবে।

সৌদি আরবের আরোপিত এই প্রতিবন্ধকতার বিষয়ে জাতিসংঘের বিশ্বাস ও ধর্মবিষয়ক একজন বিশেষ দূতের কাছে নালিশ করেছে এনএইচআরসি। অভিযোগে বলা হয়েছে, এই প্রতিবন্ধকতা আরোপের ঘটনা ‘পুণ্যার্থীদের অধিকারের নিশ্চয়তা বিধানের আন্তর্জাতিক আইন ও চুক্তির চরম লঙ্ঘন। ’

হজে যেতে ইচ্ছুক কাতারিদের বিরুদ্ধে প্রতিবন্ধকতা চাপানোর বিষয়টিকে কাতারের ওপর সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত, বাহরাইন ও মিশরের সম্মিলিত অবরোধ আরোপের অংশ হিসেবে দেখা হচ্ছে। সন্ত্রাসে অর্থায়ন ও ইরানকে সহায়তার অভিযোগে ৫ জুন কাতারের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করে ওই চার উপসাগরীয় আরব দেশ। কাতারের সঙ্গে সব ধরনের যোগাযোগ বন্ধ করেছে তারা এবং সৌদি আরব তাদের কাতার-সীমান্তও বন্ধ করে দিয়েছে। প্রায় দুই মাস হতে চলল কিন্তু বিদ্যমান সংকট সমাধানের কোনো আভাস পাওয়া যায়নি এখনো।

ইসলামের পবিত্রতম দুই নগরী মক্কা ও মদিনার হেফাজতকারী হিসেবে প্রতিবছর হজ পালনের আনুষ্ঠানিকতার আয়োজন করে থাকে সৌদি আরব। ইসলামের পঞ্চম স্তম্ভ হজ। মুসলিম জাহান থেকে কয়েক লাখ ধর্মপ্রাণ মানুষ প্রতিবছর হজ পালন করে থাকে। সম্পদশালী ও সক্ষম মুসলিমদের জন্য জীবনে একবার হজ পালন করা ইসলামে ফরজ। এবার হজের আনুষ্ঠানিকতা শুরু হবে সেপ্টম্বর মাসের প্রথম সপ্তাহে।

এনএইচআরসি বলেছে, ‘ধর্মীয় আচার-অনুষ্ঠানের রাজনীতিকীকরণ এবং এসব ব্যবহার করে (সৌদি আরবের) রাজনৈতিক উদ্দেশ্য হাসিলের ঘটনা চরম উদ্বেগজনক। ’

নাগরিক স্বাধীনতার অধিকার নিয়ে কাজ করা একটি গ্রুপ জানিয়েছে, সৌদি ভূখণ্ডে কাতারি নাগরিকদের হয়রানি ও হুমকির বিষয়ে সৌদি আরবের বিরুদ্ধে ইউনেসকোর কাছে অভিযোগ জানাবে তারা। রমজান মাসে এই গ্রুপ অভিযোগ করেছিল, ধর্মীয় স্থানগুলো পরিদর্শনে বাধা দিতে কাতারিদের হোটেল ছেড়ে যেতে বাধ্য করেছিল সৌদি আরব।

Post a Comment

 
Top