চাকরি জাতীয়করণের দাবিতে সিএইচসিপিদের মহাসমাবেশ
নিজস্ব প্রতিবেদকঃ চাকরি জাতীয়করণের দাবিতে আগামী ২৯ অক্টোবর বৃহস্পতিবার পর্যন্ত সরকারকে সময় বেধে দিয়েছে বাংলাদেশ কমিউনিটি হেলথ কেয়ার প্রোভাইডার (সিএইচসিপি) এসোসিয়েশন। বৃহস্পতিবারের মধ্যে দাবি মানা না হলে ওইদিন সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে পরবর্তী কর্মসূচিরও ঘোষণা দেয়া হবে বলেও জানান তারা। শুক্রবার কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে বাংলাদেশ কমিউনিটি হেলথ কেয়ার প্রোভাইডার (সিএইচসিপি) অ্যাসোসিয়েশনের কেন্দ্রীয় কমিটি কর্তৃক আয়োজিত দিনব্যাপী মহাসমাবেশ ও অবস্থান কর্মসূচিতে এ ঘোষণা দেয়া হয়। সকাল ৯টা থেকে শুরু হওয়া এ কর্মসূচি চলে বিকেল সাড়ে ৪টা পর্যন্ত। সমাবেশে বক্তারা অবিলম্বে সরকারকে সিএইচসিপিদের চাকরি জাতীয়করণের দাবি জানান। অন্যথায় ভবিষ্যতে কঠোর কর্মসূচির দেয়ার হুমকি দেন। বক্তারা বলেন, "আমরা মারামারি হানাহানি চাই না, আমরা একমুঠো ভাত চাই। আমাদের একটাই দাবি যে, আমাদের চাকরি অবিলম্বে জাতীয়করণ করতে হবে।" মানব সেবায় নিজেদের দায়িত্ব অব্যাহত রাখার ঘোষণা দিয়ে তারা বলেন, "আমরা গ্রামগঞ্জে সাধারণ মানুষদের চিকিৎসা দিয়ে যাচ্ছি। আমরা আমাদের দায়িত্ব যথাযথভাবে পালন অব্যাহত রাখবো। কিন্তু আমরা আমাদের চাকরি রাজস্বকরণ চাই। অন্যথায় আমরা রাস্তায় নামতে বাধ্য হবো। আমরা চাই না সরকার আমাদের রাস্তায় নামতে বাধ্য করবে।" আইনশৃঙ্খলা বাহিনী দিয়ে আন্দোলন দমানো যাবে না বলে হুশিয়ারি উচ্চারণ করে তারা আরো বলেন, "আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ভয় দেখিয়ে সিএইচসিপিদের আন্দোলনকে কখনো দমানো যাবে না। কারণ তারা দাবি আদায়ে প্রয়োজনে পুলিশের লাঠিচার্য, র্যাব, বিজিবির গুলি খেতেও প্রস্তুত রয়েছে।" একটি মহল আন্দোলনকে ভিন্নখাতে প্রভাবিত করার চেষ্টা করছে অভিযোগ করে বক্তারা বলেন, একটি মহল সরকারকে বিভ্রান্ত করতে আন্দোলনকে ভিন্নখাতে প্রভাবিত করার চেষ্টায় লিপ্ত রয়েছে। তবে আমরা পরিষ্কারভাবে বলতে চাই আমাদের আন্দোলনকে কখনো প্রশ্নবিদ্ধ করতে পারবে না কেউ। কারণ আমরা এখানো কোন রাজনীতি করার জন্য আসিনি। আমরা এসেছি আমাদের ন্যায্য অধিকার আদায়ের জন্য।
চাকরি জাতীয়করণের দাবিতে সিএইচসিপিদের মহাসমাবেশ
চাকরি জাতীয়করণের দাবিতে সিএইচসিপিদের মহাসমাবেশ
চাকরি জাতীয়করণের দাবিতে সিএইচসিপিদের মহাসমাবেশ
চাকরি জাতীয়করণের দাবিতে সিএইচসিপিদের মহাসমাবেশ 

Post a Comment

 
Top